ইংলিশদের ঘর থেকে ইউরোকাপ ২০২০ শিরোপা ছিনিয়ে ইতালি ফিরল চেলিনির দল । টাই-ব্রেকারে স্বপ্নভঙ্গ ইংল্যান্ডের।

0
103

ইংলিশদের ঘর থেকে ইউরোকাপ ২০২০ শিরোপা ছিনিয়ে ইতালি ফিরল চেলিনির দল । টাই-ব্রেকারে স্বপ্নভঙ্গ ইংল্যান্ডের।
কাজী মাহফুজ রানা , ভেনিস, ইতালি।

ইংল্যান্ড বনাম ইতালি শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটি গত রবিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ইংল্যান্ডের ওয়েম্বলিতে । দীর্ঘ প্রায় একমাস শেষে অনুষ্ঠিত হলো নিজেদের শক্তি প্রদর্শনীর ম্যাচটি।

ইউরো কাপের ফাইনালে চেলিনির ইতালি বনাম হ্যারি কেনের ইংল্যান্ড দর্শকদের রোমাঞ্চকর লড়াই উপহার দিয়ে শেষে জয় পেয়েছে চারবারের বিশ্বসেরা ইতালি। পেনাল্টি শুটআউটে হারলো ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডকে ঘরের মাঠে শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে হারালো ইতালি।রোমাঞ্চকর ফাইনালের সাক্ষী থাকলো গোটা বিশ্ব।শেষ পর্যন্ত টাই-ব্রেকারে স্বপ্নভঙ্গ হলো ইংল্যান্ডের।


অবশেষে ইউরো কাপের ফাইনালে জয় পেল ইতালি। ফের একবার ইউরো সেরা নিজেদের প্রমাণ করলো রবের্তো মানচিনির শিষ্যরা। তবে দীর্ঘ ৫৩ বছরের অপেক্ষার পর দ্বিতীয়বারের মতো ইউরো কাপ কাঁধে তুলেছে ইতালি।

রোমাঞ্চকর ফাইনালের সাক্ষী থাকলো গোটা বিশ্ব। দারুণ ফুটবল দেখা গেল দুই দলের। নির্ধারিত সময় সহ এক্সট্রা টাইমে ১-১ ড্র হওয়ার পর শেষমেষ পেনাল্টি শুটআউটে ম্যাচ গড়িয়েছে রবিবার। পেনাল্টিতে ৩-২ গোলে জিতে নিল ইতালি দল। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে পরাস্ত করল বেনুসি-চেলিনিরা।

দুর্দান্ত খেলা উপহার দিয়েও শেষ রক্ষা করতে পারেননি ইংল্যান্ডের গোলরক্ষক পিকফোর্ড।
দারুণ ফুটবল খেললেন ইতালির গোলরক্ষকও। শেষ গোল আটকে অন্যতম হিরো হয়ে মাঠ ছাড়লেন তিনি।

ভেনিসের মেস্ত্রে পিয়াচ্ছা কান্দিয়ানীতে বড় পর্দায় বিপুল লোকের সমাগমে প্রদর্শনীত হয়েছে এই ম্যাচটি ইতালিয়ানদের পাশাপাশি বাংলাদেশী দর্শকের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। নিরাপত্তা জোরদার করতে অতিরিক্ত ব্যবস্থা করেছিল স্থানীয় প্রশাসন। ফাইনালী ইতালি বিষয় হ‌ওয়ার সাথে সাথে বিজয়োল্লাসে মেতে ওঠে সবাই। জনতার ঢল ও বিজয় উৎসবের আতসবাজিতে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে চারপাশ। গাড়ির হর্ন , মানুষের উল্লাস সে এক অভূতপূর্ব দৃশ্য যা চোখে না দেখলে বোঝানো সম্ভব নয়।

ইতালি :-

প্রথম পেনাল্টি- গোল (ডমিনিকো) , দ্বিতীয় পেনাল্টি- মিস (বেলোটি) , তৃতীয় পেনাল্টি – গোল (বনুসি) , চতুর্থ পেনাল্টি- গোল (ফেডেরিকো) , পঞ্চম পেনাল্টি- মিস (জোর্জিনো)

ইংল্যান্ড :-
প্রথম পেনাল্টি- গোল (হ্যারি কেন) , দ্বিতীয় পেনাল্টি- গোল (মাগুরে) , তৃতীয় পেনাল্টি – মিস (রাশফোর্ড) , চতুর্থ পেনাল্টি- মিস (স্যাঞ্চো) , পঞ্চম পেনাল্টি- গোল (বুকাও সাকা)