সেঞ্চুরি করেই চলেছেন কোহলি!

0
504

সৌরভ গাঙ্গুলীকে ছাড়াতে মাত্র ২ ইনিংসই লাগল বিরাট কোহলির। ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে ১১ সেঞ্চুরির রেকর্ড ছিল গাঙ্গুলীর। ভারতীয় ক্রিকেটে আক্রমণাত্মক ধারাটা ফিরিয়ে আনা অধিনায়ককে কোহলি ছুঁয়েছেন দুই ম্যাচ আগে। ডারবানে ম্যাচ জেতানো ১১২ রানের ইনিংসটি ছিল অধিনায়ক হিসেবে কোহলির ১১তম। মাঝে এক ম্যাচের বিরতি। সেটা আর বাড়াতে রাজি হলেন না কোহলি। কেপটাউনে আরেকটি দুর্দান্ত ইনিংসে পেছনে ফেললেন গাঙ্গুলীকে। কোহলির ৩৪তম সেঞ্চুরিতে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৬ উইকেটে ৩০৩ রানের বড় স্কোর গড়েছে ভারত। কোহলি একাই খেলেছেন ১৬০ রানের ইনিংস।

ওয়ানডেতে অধিনায়ক হিসেবে ১১ সেঞ্চুরি করতে গাঙ্গুলীর দরকার হয়েছিল ১৪২ ইনিংস। আর তাঁকে ছাড়িয়ে যেতে কোহলির লাগল মাত্র ৪৩ ইনিংস! কোহলি অবশ্য বলতেই পারেন, যে ফর্মে আছি, ৪২ ইনিংসেই হতে পারত। সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সেঞ্চুরির পর দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৪৬ রানে থামতে হয়েছিল কোহলিকে। না, তাঁকে আউট করতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। লক্ষ্যই ছিল ১১৯ রানের, কোহলির পক্ষে সম্ভবও ছিল না এর বেশি রান করার।

আজ অবশ্য কোহলির সামনে অমন কোনো বাধা ছিল না। এইডান মার্করাম টসে জিতেই ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে দিয়েছেন ভারতকে। কাগিসো রাবাদা প্রথম ওভারেই অধিনায়ককে উপহার দিয়েছেন রোহিত শর্মার উইকেট। কোহলির উইকেটও উপহার দিয়েছিলেন তৃতীয় ওভারে। কিন্তু রাবাদার বলটা যে প্যাডে লাগার আগে কোহলির ব্যাট ছুঁয়ে গিয়েছে, সেটা আম্পায়ারের চোখ এড়ালেও টিভি আম্পায়ার সে সিদ্ধান্ত বদলে দিয়েছেন। কোহলির নামের পাশে তখনো কোনো রান যোগ হয়নি।

সেই কোহলি থামলেন ওয়ানডেতে তৃতীয়বারের মতো ১৫০-এর স্কোর গড়ে। বলই যে সব ফুরিয়ে গেল! খুব যে চার ছক্কা মেরেছেন তা কিন্তু নয়। ১১৯ বলে সেঞ্চুরি ছুঁতে মাত্র ৭টি চার মেরেছেন। ইনিংস শেষ হতে হতে ১২টি চার ও ২ ছক্কা। তাতেই ভারতের স্কোর এখন প্রায় পাহাড়ে রূপ নিল। অথচ এক শিখর ধাওয়ান ছাড়া অন্য প্রান্তে কেউই খুব একটা সঙ্গ দেননি। ৬৩ বলে ৭৬ রান করা ধাওয়ান দ্বিতীয় উইকেটে ১৪০ রান যোগ করে আউট হওয়ার পর থেকেই একাই দলকে টেনেছেন কোহলি।

সব মিলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি তাঁর ৫৫তম সেঞ্চুরি। ২৯ বছর বয়সী কোহলি রকেট গতিতে ছুটছেন টেন্ডুলকারের সেঞ্চুরির সেঞ্চুরির দিকে।