সাবেক রাষ্ট্রপতির তিরোধান :

1
479
  1. সাবেক রাষ্ট্রপতির তিরোধান : কামাল উদ্দিন  । ( চ্যানেল প্রবাহ বিশেষ রিপোর্ট)

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ৮৯ বছর বয়সী সাবেক সেনা নয়ক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান (জাপা) এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ ই‌ন্তেকাল ক‌রে‌ছেন। (ইন্না লিল্লাহি…রাজিউন)। আজ রোববার সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে জানা গেছে।

মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পর পাকিস্তান ফেরত এ সেনানায়ক সাবেক সেনা প্রধান জিয়াউর রহমানের মৃত্যু পরবর্তী স্বল্পকালীণ ক্ষমতাসীন বিচারপতি আঃ সাত্তার সরকারকে সরিয়ে বাংলাদেশের রাষ্ট্র ক্ষমতা হস্তগত করে দীর্ঘ নয় বছর রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন।

মৃত্যুর পর দোষ বলা উদ্দেশ্য নয়,প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ এর কিছু বিরল দৃষ্টান্ত বলতে চাইঃ-

১)
তার শাসনামলে তিনি “হা” “না” ভোটের মাধ্যমে দেশে ক্ষমতার বৈধতা অর্জন করেন।

২)
সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত জেনাঃ মঞ্জুর হত্যাকান্ডের সাথে তার ওতোপ্রোত ভাবে সম্পৃক্ততার বিষয়টি বহুল আলোচিত থাকলেও স্বাধীনতার স্বপক্ষের বহু সেনাকর্মকর্তাদের কোর্ট মার্শালের মাধ্যমে হত্যার অভিযোগ তার পিছু ছাড়েনি। এমন অভিযোগ নিয়েও তিনি নয় বছর দেশ শাসন করে রাস্তা ঘাট ব্রীজ কালভার্ট স্হাপনের মাধ্যমে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেন।

৩)
তার শাসনামলে তিনি কবিতা লিখে জনগনের কাছে আসা শুরু করেন,তার অন্যতম শ্লোগান “আষট্টি হাজার গ্রাম বাঁচলে দেশ বাঁচবে ” এর মাধ্যমে জন সম্পৃক্ততা বাড়াতে থাকেন।এক সময় তিনি তার দলীয় লোকদের দ্বারা ‘পল্লীবন্ধু’ খেতাবে ভূষিত হন।

৪)
তার শাসনামলে উপজেলায় প্রশাসন ও উপজেলা আদালত চালু করে প্রশাসনিক ও বিচার ব্যবস্হার বিকেন্দ্রীকরনে যুগান্তকারী পদক্ষেপ তাকে গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোড ও ঘোড়ারডাক প্রথা প্রছলন কারী শের শাহের মত স্মরণীয় করে রাখবে বলে লোকজন বলাবলি করে।
তিনি একজন আলোচিত প্রেমিক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছিলেন,তিনি ময়মনসিংহের প্রথমা পত্নী মিসেস রওশন এরশাদ ছাড়াও বিদিশা ও মেরী নামে দুজনকে বিবাহ করেছিলেন পুত্র শাদ এরশাদের পিতা হতে পেরেছেন। নারী মহলে তার বেশ সুনাম ও নাম ডাক ছিলো।

৫)
তিনি ‘৯০ এর দেশব্যাপী সর্বদলীয় গণআন্দোলনে ক্ষমতাচ্যুত হবার পর ও আমৃত্যু রাজনীতিতে সক্রীয় থেকে সরকারী বিভিন্ন পদ অলংকৃত করেন এবং দেশের রাজনীতির মাঠে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে বিরল দৃষ্টান্ত স্হাপন করেন।


  • ৬)
    দেশের অনগ্রসর রংপুর জেলার সন্তান হিসেবে জন্মগ্রহন করে ও তিনি দীর্ঘ সময় দেশ পরিচালনা করেন।

★একজন শক্তিশালী সেনানায়ক,একনায়ক রাষ্ট্রপতি হলেও মৃত্যুবরণ করতে হয়।যে,যতবড় শক্তিশালী ব্যক্তি হোকনা কেন,সবাইকে এরাস্তায় একদিন যেতেই হবে।(কুল্লু নাফসুন যায়েকাতুল মউত) “সকল প্রাণকে মৃত্যুর স্বাদ আস্বাদন করতে হবে।”

ঘটনাবহুল বৈচিত্রপূর্ণ জীবনের অধিকারী সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি ও তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি!!আমীন।

 

1 COMMENT

  1. পল্লীবন্ধু সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। আমিন।

Comments are closed.