সভ্যতার লাশের পর বেঁধেছি বসতঘর ✍️ – নাসির মাহমুদ –

0
188

সভ্যতার লাশের পর বেঁধেছি বসতঘর
✍️ – নাসির মাহমুদ –

“”””””””””””””””””””'”””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””‘”””””””””””

সভ্যতার লাশের পর বেঁধেছি বসতঘর, মৃত্যুকে কীসের ভয়!
যারা করেছে জুলুম নিজের ওপর ইতিহাসের বাঁকে বাঁকে
কখনো আপন জাতি আবার বিশ্বমানবতার
তাদের ধ্বংসাবশেষের নাম দিয়েছি সভ্যতা।
মহেঞ্জাদারো, হরপ্পায় আমি দেখি সেই প্রামাণ্য ইতিহাস …
কী দুর্দান্ত শক্তি আর কৌশল মদমত্ত ছিল তারা
পায়ের তলায় পিষে যত নিয়মনীতি শৃঙ্ক্ষলা, পাহাড় টলাতেও
ছিল দুর্দম, অবিনাশী, পরাভব না মানার অপরাজেয় সাহস
সেইসব আজ মৃত্তিকা খুঁড়ে বের করা পুরাতাত্ত্বিক ইতিহাস
আত্মভোলা পরাশক্তির অহম ভাঙার কালজয়ী
গল্প লিখেছেন কথাশিল্পী একের পর এক যুগে যুগে।
চার সহস্রাব্দ আগেকার ফেরাউনের অক্ষত লাশের খোলাগ্রন্থে
আজও সেই গল্পের পটভূমি আছে লেখা
আবরাহা নমরুদের প্লটেও আঁকা আছে তারই রূপরেখা
প্রতিটি গল্পেই যেন অভিন্ন কাহিনী:
অহমের পাহাড় ভেঙে দেয়া বায়ুর মতো সামান্য ফুঁৎকার …
গল্পগুলো সকলের জানা
তবু খোলে না মননের নয়ন, খোলে না, খোলে না …
পৃথিবীর তাবৎ মৃত্তিকায় কান লাগালে শোনা যাবে
অভিশপ্ত জাতির আর্তচীৎকার-হাহাকার ধ্বনি,
যারা জুলুম করেছে নিজেদের শক্তি আর জ্ঞানের ‘পর।
হ্যাঁ জ্ঞান! ফেরাউনের লাশ কেন অক্ষত আজও
কোন ফরমালিনে, কে রেখেছে তাকে নির্বিকার!
পিরামিডের পাথরে কি নজর পড়েছে এ যুগের বিজ্ঞানীর!
দেখেছে কি তারা দুনয়ন মেলে এ যুগের তাজমহল!
জুলুম! মানে বস্তুকে তার যোগ্য আসনে না রাখা
জুলুম মানে-
পৃথিবীর সীমা পেরিয়ে চাঁদের বুকে পা ফেলা অহংকার,
মঙ্গলে ঘর বাঁধার আত্মহারা দুর্নিবার ভাবনা।
জুলুম মানে ঐশিরোষে পরমাণু বোমা হাতে
সূক্ষ্মদৃশ্য করোনার কাছে অসহায় পরাশক্তির নীরবতা।
করোনা-দোর্দণ্ড প্রতাপ সিংহকে গর্তে ঢুকিয়ে রাখা
অদেখা ক্রোধের কণা, আর-
মাত্রাহীন পীড়নের গতিমুখে অভিনতুন আঘাত তার।
কার্যকারণ লেখা আছে গল্পের শিরায় শিরায়
কখনো কি পড়েছো খোলাপাতা তার,খুলে মন আর মননের চোখ?
জুড়ে ভারসমতার ছেঁড়া শেকল
নোঙর করো তীরে যাবতীয় রোষের অনল।
ভেঙেচুরে দেখেছি
ইতিহাসের স্তব্ধ পাথরে দিয়ে ভর
কতশত সভ্যতার
সমাধির পর বেঁধে আছি এ বসতঘর#