এওজবালিয়া ইউনিয়ন বাসীর সেবক হতে চাই – বেলাল হোসেন বেলাল

0
186

এওজবালিয়া ইউনিয়ন বাসীর সেবক হতে চাই—বেলাল হোসেন বেলাল।

রাশেদুল হাসান রাশেদ,নোয়াখালী প্রতিনিধি।

এওজবালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুণ সমাজ সেবক বেল্লাল হোসেন বেলাল করোনা দুর্যোগের দিনেও জীবনের ঝুকি নিয়ে সেবা করে চলেছেন।

এলাকার কোন গরীব মানুষের বিয়ে থেকে শুরু করে, ফুটবল-ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সব ধরনের আয়োজনে তাকে ডাকা মাত্রই হাজির হন। সে কারনে ইউনিয়নে তরুন সমাজসহ সব বয়সী মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কেও কোন বিপদে পড়লে ফোন করলে তাৎক্ষনিকভাবে সেখানে হাজির হন।

এলাকায় কোন অপরাধীদের সাথে তার কোন আপোষ নেই। যার কারনে তরুন এ নেতাকে সবাই পছন্দ করে। মিষ্টভাষী এ বেলাল হোসেন এলাকার উন্নয়নের জন্য দীর্ঘদিন ধরে নানা সমাজ-সামাজিকতায় গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করে আসছে।

রাজনীতির পাশা-পাশি ঠিকাদারি আর ব্যবসা করে যা আয় করেন তার বেশির ভাগ ইউনিয়নের মানুষের পিছনে খরচ করেন। যে কারনে কোন কিছু প্রয়োজন হলে ছুটে যান তার কাছে। আর এ কারনে সে এখন মানবতার ফেরিওয়ালা উপাধী পেয়েছেন। এ কথাগুলো বলছিলেন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের নিবেদিত নেতা-কর্মী অনেকেই।

তারা তরুন নেতৃত্ব চান,যে কি না এলাকার মানুষের জন্য মন কাদে তেমন সেবক বেলাল হোসেনকেই খুজে পেয়েছেন বলে সংবাদ প্রতিদিন কাছে মন্তব্য করেন।

করোনা দুর্যোগে যখন মানুষ বেকার হয়ে পড়েছে তখন মানবতার প্রেমিক হয়ে এ আওয়ামীলীগ নেতা ইউনিয়নের প্রতিটা গ্রামে গ্রামে গিয়ে ত্রান পৌছে দিয়েছেন

বেলাল হোসেন গত কয়েক দিনে এওজবালিয়া ইউনিয়নে কয়েক হাজার মানুষের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেন।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা জানান, রাজনীতির পাশা-পাশি ব্যবসা করে এলাকার মানুষের সেবা করার জন্য পাশে থাকার জন্য চেষ্টা করে চলেছি।

বেলাল হোসেন বলেন,আমি আমার নিজ ইউনিয়ন এওজবালিয়া মানুষের জন্য সুখ-দুঃখে পাশে থাকবো। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরছি। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন পেলে এওজবালিয়া ইউনিয়ন মডেল ইউনিয়নে রুপান্তরিত করতে চাই।

তিনি আরও বলেন, আমি আজীবন এওজবালিয়া ইউনিয়নের মানুষের সেবা করে সেবক হতে চাই। সে কারনে এওজবালিয়া ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনসাধারণ আমাকে সহযোগিতা করবেন। আমি আপনাদের পরামর্শ নিয়েই কাজ করে যেতে চাই,আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।