ইতালিতে নিযুক্ত মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ শামীম আহসান এবং প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিষ্ট  আনিস আলমগীরের উপস্থিতিতে “বিজয় বিশ্বময়” নামে আয়েবাপিসি’র জুম ভার্চুয়াল মিটিং।

0
68

ইতালিতে নিযুক্ত মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ শামীম আহসান এবং প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিষ্ট  আনিস আলমগীরের উপস্থিতিতে “বিজয় বিশ্বময়” নামে আয়েবাপিসি’র জুম ভার্চুয়াল মিটিং।

কাজী মাহফুজ রানা , ভেনিস , ইতালি :-
_____________________________________________

বাংলাদেশের মহান বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে এক আন্তর্জাতিক অনলাইন জুম ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিজয় সুবর্ণ জয়ন্তীর আয়েবাপিসি’র এই জুম ভার্চুয়াল মিটিংয়ের নাম “বিজয় বিশ্বময়”।

প্রধান অতিথি হিসাবে অংশগ্রহণ করেন ইতালিতে নিযুক্ত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ শামীম আহসান এবং বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিষ্ট জনাব আনিস আলমগীর।

শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন অস্ট্রিয়া থেকে আয়েবাপিসির প্রধান উপদেষ্টা জনাব মাহবুবুর রহমান।আয়েবাপিসির সন্মানিত সভাপতি হাবিবুর রহমান হেলাল অসুস্থ থাকায় আয়েবাপিসির সহ সভাপতি ইতালি থেকে মোঃ জিয়াউর রহমান খান সোহেল অনুষ্ঠানের সভাপতিত্বের দায়িত্ব পালন করেন।এবং ইতালির জেনোভা থেকে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন
আয়েবাপিসির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন সুমন ।

প্রধান অতিথি মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ শামীম আহসান তার বক্তব্যের শুরুতেই ইউরোপের বিভিন্ন দেশে অবস্থিত সাংবাদিকদের নিয়ে গঠিত এই আয়েবাপিসি প্রতিষ্ঠার প্রশংসা করেন । পুরো ইউরোপ জুড়ে সাংবাদিকতাকে ও বাংলাদেশী বংশোদ্ভূতদের মধ্যে আরও ঐক্য ও পারস্পরিক সম্পর্ক জোড়ালো ও দৃঢ় ঐক্য দাঁড় করতে এমন একটি সংগঠন গঠনের প্রয়োজন ছিলো বলে উল্লেখ করেন।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান দেখানোর কথা জানান।তাছাড়াও যে সমস্ত বিদেশীরা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে সমর্থন ও সাহায্য করেছেন তাদেরকেও সরকার খুঁজে বের করে সন্মানিত করেন বলে উল্লেখ করেন।

এই প্রসঙ্গে আয়েবাপিসির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং সংগঠনটির আজীবন সদস্য মনিরুজ্জামান মনির মাননীয় রাষ্ট্রদূতকে ইতালির এক ব্যক্তির নাম বলেন, যিনি আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ইতালির অনেক শহরে মানববন্ধন সহ বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে জনসমর্থন তৈরি করেছেন।

মান্যবর রাষ্ট্রদূত বলেন আমি এই ইতালিয়ান মহান ব্যক্তির পরিচয় বাংলাদেশ সরকারের কর্তৃপক্ষের নিকট পৌঁছে দিব। মান্যবর রাষ্ট্রদূত
আয়েবাপিসির সব ধরনের কাজে সর্বাত্মত সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।

বিশেষ অতিথি বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিষ্ট আনিস আলমগীর ইউরোপের মাটিতে বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকদের নিয়ে আয়েবাপিসি গঠনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। উল্লেখ্য , সাংবাদিক আনিস আলমগীর একজন সাহসী সাংবাদিক হিসাবে বেশ প্রসিদ্ধ। তিনি ইরাক ও সিরিয়ার যুদ্ধ বিধ্বস্ত অঞ্চল থেকেও সরাসরি সংবাদ প্রেরণ করে যথেষ্ট সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে বেশ সুখ্যাতি ও সুনাম অর্জন করেছেন।

তিনি বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তীর “বিজয় বিশ্বময়” অনুষ্ঠানে তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে যারা দেশের জন্য প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন তাদের প্রতি বিশেষ শ্রদ্ধা জানান।তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের প্রতি তার সর্বোচ্চ ত্যাগের কথাও জানান। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে তৎকালীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত ইন্দিরা গান্ধীর অবদানের কথাও স্মরণ করেন।

আমন্ত্রিত অতিথি মান্যবর রাষ্ট্রদূত ও বিশেষ অতিথির কাছে আয়েবাপিসি’র উপদেষ্টাবৃন্দ সহ বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির উপস্থিত সদস্যরা তাদের ব্যক্তিগত পরিচয় দেন ও তাদের নিজ নিজ সাংগঠনিক দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করার আশা ব্যক্ত করেন।